Saturday, June 7, 2014

সামনে রোজার মাস,তাই রোজা সম্পর্কে কিছু কথা।।আশা করি সবাই জানার চেষ্টা করবেন...

১. ঈমান সহকারে আল্লাহ-কে খুশি করার জন্যরোজা রাখলে,পূর্বের সকল সগিরা (ছোট) গুনাহক্ষমা হয়ে যায়।কবিরা (বড়) গুনাহ-ও ক্ষমা হয়ে যায়ইনশাআল্লাহ্, যদি কেউ তওবা করে নেয়। .....
২. পবিত্র মাস রমজানে সকল মুসলমানেরজন্য জান্নাতের দরজা খুলে যায়,এবং জাহান্নামের দরজা বন্ধ হয়ে যায়।......৩. কেউ যদি রোজাদারকে গালি দেয়, বা কটু কথা বলে বা উত্তেজিত করারচেষ্টা করে,রোজাদার যেনকোনো অবস্থাতে গালি না দেন,কটু কথা না বলেন বা উত্তেজিত না হন;তিনি শুধু বলবেন, ‘আমি রোজাদার’। ......
৪. সিয়ামের (রোজার) সাথে কিয়াম(তারাবীহ) নামাজ অত্যন্ত ভাল।সিয়াম ও কিয়াম একত্রে পালন করলে পূর্বেরসকল সগিরা (ছোট) গুনাহ ক্ষমা হয়ে যায়।কবিরা (বড়) গুনাহ-ও ক্ষমা হয়ে যায় ইনশাআল্লাহ্, যদি কেউ তওবা করে নেয়।.....
৫. কেউ যদি কোনো রোজাদার কে ইফতারকরান,তার-ও রোজাদারের রোজা রাখার সমানসওয়াব হবে। তাতে রোজাদারের সওয়াব কোনো কমবে না।.....
৬. রাসুল (সাঃ) শাবান মাসে রোজারপ্রস্তুতি হিসেবে,সবচেয়ে বেশি নফল রোজা রাখতেন ও নফলনামাজ পড়তেন। .....
৭. ইফতারের পূর্বের দোয়া আল্লাহ্ অবশ্যইকবুল করেন।তবে সেই ক্ষেত্রে শর্ত হচ্ছে,তারসারাদিনের রোজা সহিহ হতে হবে।অর্থাৎ, তিনি সারাদিন রোজার শর্ত মত নিজেকে সঠিক মুসলমানের মত কাজ করেছেনকিনা;গীবত করলে, মিথ্যা বললে, হারাম খেলে এইব্যাপার প্রযোজ্য না।.....
৮. রোজাদারের রোজা কবুল হওয়ার প্রথম শর্ত হল,অবশ্যই তাকে হালাল রুজি কামাইকরতে হবে।ঘুষ, সুদ বা যে কোনো ধরনের হারাম উপার্জনকরলে,সেই লোকের রোজা আর বিনা কারনে না খেয়ে থাকা আল্লাহ-রকাছে এক-ই কথা।.....
৯. রোজার অর্থ না খেয়ে থাকা নয়। রোজারঅর্থ নিবৃত্ত হওয়া।এই নিবৃত্ত হতে হবে সকল খারাপ কাজ, হারামউপার্জন ওআল্লাহ্-র নির্দেশিত সকল খারাপবা নিষিদ্ধ কাজ হতে।তাহলেই ইনশাআল্লাহ্ সে রোজাদারেরমর্যাদা পাবে।.....
১০. রোযা একমাত্র আল্লাহর জন্য এবং এরপুরস্কার আল্লাহ তাঁর নিজ হাতে দিবেন।আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে রোযার যাবতীয়হক্বগুলো আদায় করে রোযা রাখার তাওফীকদান করুন,,,আমীন।

No comments:

Post a Comment